ধান ক্রয়ে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণে লোকমোর্চার উদ্যোগ

 In Blog

সরকারিভাবে কৃষকদের কাছ থেকে ধান ক্রয়ে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণে গত ২৮ জুন ২০২০ চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলাররায়পুর ইউপি হলরুমে লোকমোর্চার উদ্যোগে সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্মকর্তাদের সাথে চাষীদের ‘এক সংলাপ’ অনুষ্ঠিত হয়। পিকেএসএফ-এরসহায়তায় ওয়েভ ফাউন্ডেশন কর্তৃক বাস্তবায়িত সামাজিক পুঁজি গঠনের মাধ্যমে সরকারি সেবাসমূহ  জনবান্ধবকরণ প্রকল্পের অধীনেআয়োজিত এ অনুষ্ঠানে সভাপতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রায়পুর ইউপি চেয়ারম্যান। এছাড়াও অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা কৃষিকর্মকর্তা ও খাদ্য নিয়ন্ত্রক, উপজেলা লোকমোর্চা সভাপতি ও সেক্রেটারি, জীবননগর প্রেসক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, দৈনিক যুগান্তরেরপ্রতিনিধি প্রমুখ।

সংলাপে লোকমোর্চার পক্ষ থেকে ১৬টি দাবি তুলে ধরা হয় যথাক্রমে- ধান কাটার আগে থেকে ধান ক্রয় প্রক্রিয়া শুরু করা; চূড়ান্ত তালিকায় ভুয়াচাষীদের নাম অন্তর্ভুক্তি বন্ধ করা; ব্যাংকে ধান চাষীদের একাউন্ট খোলার ক্ষেত্রে হয়রানি বন্ধ করা; ওয়ার্ড পর্যায় থেকে ধানের ময়েশ্চারাইজার চেককরার ব্যবস্থা করা; গোডাউনে দায়িত্বরত ৩য় শ্রেণীর কর্মচারীদের মাধ্যমে হয়রানি বন্ধ করা; ধান দেয়ার প্রক্রিয়া সম্পর্কে চাষীদের ওরিয়েন্ট করা; অভিযোগ নেয়ার জন্য হটলাইন চালু করা; প্রতারক চক্র ও সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমান আদালত কার্যকর করা; ধান লাগানোর সময়ে ধানচাষীদের নাম লিস্ট করা এবং প্রান্তিক চাষীদের সামর্থ্য অনুযায়ী ধান দেয়ার সুযোগ রাখা। আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ দাবিগুলো মনোযোগ দিয়েশোনেন এবং আগামীতে পুরো প্রক্রিয়া অনুসরণ করে লটারিতে বিজয়ী সকল চাষী যেন ধান দিতে পারে, সে বিষয়ে লোকমোর্চার দাবি ও পরামর্শবিবেচনায় থাকবে বলে প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন। উক্ত সংলাপে আরো বক্তব্য রাখেন রায়পুর ইউপি লোকমোর্চা নেতৃবৃন্দ, স্থানীয় ধান চাষী, নারীকৃষক এবং ব্যবসায়ী প্রতিনিধিবৃন্দ

উল্লিখিত সংলাপ আয়োজনের আগেই গত ৩ ও ১৩ মে জাতীয় দৈনিক ‘প্রথম আলো’র ফেসবুক পেইজ এবং ইউটিউব চ্যানেলে কৃষকের ধানসংগ্রহে ছয় দফা দাবি এবং বোরো ধানচাল সংগ্রহ অভিযান শুরু শিরোনামে দুটি ভিডিও প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এরফলে লোকমোর্চার এউদ্যোগগুলো সহজেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নজরে আসে। এ উদ্যোগের কারণে ইতিমধ্যে ধান দেয়ার প্রক্রিয়া বিষয়ে কৃষকরা ওরিয়েন্টেশন পেয়েছে,ভুয়া চাষীদের নাম অন্তর্ভুক্তি বন্ধ হয়েছে, ব্যাংকে কৃষকদের একাউন্ট খোলা সহজ হয়েছে এবং হয়রানি ছাড়া কৃষকরা সরকারি গোডাউনে ধানদিতে পারছে।

 

Recommended Posts

Leave a Comment

Contact Us

We're not around right now. But you can send us an email and we'll get back to you, asap.

Not readable? Change text. captcha txt

Start typing and press Enter to search